অনুপম মণ্ডলের ‘ডাকিনীলোক’ থেকে কবিতা

0

অনুপম মণ্ডলের 'ডাকিনীলোক'
***
শহরের বাইরে
ফিলিং স্টেশন
ফেলে রাখা
হাতে বোনা অন্তর্বাস
আর দীর্ঘ কোনো হাইওয়ের দিকেই
আসলে, হেলে গেছে
আমাদের গোধূলি
শাটার টানার শব্দ
মলিন ফেস্টুনগুলো
ভরে উঠছে
সবুজ কার্ডিগানে
শুধু
ভাঁজ করা
আমার আর্ট পেপারে
নৈঃশব্দ্য
অবিশ্রান্ত
স্নো ফ্যল

***
করুণ, ওই ডালিমের মধ্যে প্রবাহিত অবিশ্বাস
একটা কবন্ধের সতর্ক কণ্ঠস্বরে
গড়িয়ে
নামছো
তুমি

নিঃসঙ্গ ক্লাউনের বিষাদ
ওই আবছা অটোগ্রাফ
কিম্বা ওই উদ্ধত
ঊরু চিহ্ন
আজ ছড়িয়ে পড়েছে
বিষণ্ন ড্রয়ারে
অতর্কিতে
উদভ্রান্ত একটা অর্গান বইছে
নিজস্ব গরাদের
দিকে

***
আর কারো হারানো বাগানে, নিদ্রিত এক আঙুরের দেহ চিরে জেগে ওঠে পথ।
ওই তীর, তারা রক্তের ভার নিয়ে বুঝি বা গড়িয়ে নামে।  
সুরেলা কোনো ক্রন্দনের ভিতর দিয়ে যেতে যেতে দেখি.
সৌরগন্ধের মতোই আরো গভীর হয়ে ওঠে!
গভীর হয়ে ওঠে, ওই পিপাসাপ্রহার।

***
একটা কালো জলপাই বন গাঁথতেই
উড়ে আসে এক ঝাঁক নীল পাখি; ডানা ভাঙা

***
কেনবা অসমাপ্ত ব্যথাটুকু বয়ে চলে বিহ্বল ফলরাশি
ওই শান্ত নক্ষত্রের অভিঘাত তারা বুঝে নিতে চায়
তৃষ্ণার উপকূলে এসে
দেখি
থামে সেই দাঁড়
থেমে যায় অস্ফুট বিভার দিকে কোনো অস্তরাগ
কত বিগ্রহ; বিমিশ্র লহরী খুঁড়ে
ওই উন্মাদের অবয়ব আমরা চিহ্নিত করি
কত অপাঠ্য গুঞ্জন রাত্রির বাগানে
সুরভির স্তনভার
ভাসে
আয়ত ভুজে
বুঝিনি যদিও
দিনশেষে
তারা ছিল ধীর কোনো নরদেহ
দাস
অবিনীত ওই কারাগার মুছে যাওয়ার পর
ফুলে ওঠা প্রতিটা লাবণ্যগান্ধার

***
সে খণ্ড সুর
অর্ধনিমীলিত কোনো শিখার একাগ্রতা থেকে
আছড়ে পড়ছে
ওইখানে
ক্রমবিলীন সমস্ত বাক্যরাশি
একটা মলিন ফলের ভেতর প্রতিসারিত
হয়তো
কোনো কোনো ক্রোধ আজ লয়হীন সন্ধ্যার দেশে
ম্রিয়মাণ
কোনো পাপ বাঈজী ঢলের মতো বাঁকহারা
আমরা তাই ব্যক্তিগত পাথর-হৃদয়ের পাশে
রেখে আসি সমস্ত তিরস্কার
অনেক গানের জরায়ু ছিঁড়ে
যারা আজ মৃদু শোভা ভেঙে জন্ম নেয়া
যারা
নূপুরের হাড়ের মতন তির্যক

***
অপরিজ্ঞাত, একটা শিখার ভেঙে যাওয়া দৃশ্যে; অই প্রেতের সম্ভাষণ
জেগে রয়েছে
নিশ্চিহ্ন বিম্বের দিকে ছুটে যাওয়া হ্রেষায়; অস্থির জঠর আঁকড়ে ধরে
অবছিন্ন গিরিখাতে   

***
সেইখানে করধৃত ঊরুর ফাঁকে কারো শীতল নিঃশ্বাস
জিহ্বার অনালোকিত ছায়ায়
নেচে নেচে ওঠে
রূপের ছাল ছাড়িয়ে জেগে থাকে
কোনো নির্ভার লুব্ধতা
আর
তার অশ্রুর অন্বয় থেকে
ওই আলোকপরিধির দিকে সরে যায় কেউ
হয়তো
গানের ঘুমন্ত প্রশাখা থেকে কারা
ধীরে ধীরে গুটিয়ে নেয় তার শান্ত পদক্ষেপ
মৃতের শত শত মৌন আর্তিগুলি ভেসে আসে
বহু ভাঙা কবর খুঁড়ে
ওই সবুজ আপেলটিই কেবল দুলতে খাকে
দুলতে খাকে
অচিহ্নিত কোনো উপকূলে
 

***
তারপর বিস্মৃতির অভিমুখে যেতে যেতে সে রব
ছিন্ন সুষমার মতোই ফণা
তুলে
 দেখে নেয় নক্ষত্রের পরিসর
ওই ঋজু
আভায়
দেখে নেয়
চরাচরে গুমরে গুমরে ওঠা
কোনো
রিক্ত ব্যর্থ আর্তনাদ

***
এই প্রণতি; পরিহাস; প্ররোচনা দিগন্তে ছড়ানো
আর ভাস্বর সে ধাতুর আয়তন নড়ছে
একা একাই; হয়তো তারার দিকে; অন্ধকারে 

ডাকিনীলোক । অনুপম মণ্ডল । কবিতার বই । প্রথম প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ২০১৬

মন্তব্য

টি মন্তব্য করা হয়েছে

logo-1

চারবাকগণ: রিসি দলাই, আরণ্যক টিটো, মজিব মহমমদ, নাহিদ আহসান

যোগাযোগ: ০১৫৫২৪১৯৪৪২, ০১৭১৮৭৬০৮৪৮, ০১৭২০৩০১৬৩০

ই-মেইল: charbak.com@gmail.com
ডিজাইন: ক্রিয়েটর